• মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল ২০২১, ১২:০৮ পূর্বাহ্ন
  • Bengali Bengali English English

রায়পুরে মহিষের কৃত্রিম প্রজনন কেন্দ্র

sodeshbarta24 / ২১২ বার পঠিত
আপডেট : মঙ্গলবার, ২৬ নভেম্বর, ২০১৯

দুগ্ধ উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যে লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে মহিষের কৃত্রিম প্রজনন কেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে। উন্নতজাতের এসব মহিষ প্রজননের মাধ্যমে উপকূলের চরাঞ্চলে ব্যাপকহারে মহিষের উৎপাদন বাড়বে। এতে কর্মসংস্থান সৃষ্টির পাশাপাশি বদলে যাবে এ জনপদের মানুষের জীবনযাত্রার মান।

তথ্য সূত্রে জানাযায়, ২০১৩ সালের জুলাই থেকে ১৭ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত ১৮ কোটি ২৪ লাখ ৪৭ হাজার টাকা ব্যায়ে লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে মহিষের কৃত্রিম প্রজনন কেন্দ্র স্থাপন প্রকল্পের অবকাঠামো নির্মাণ করা হয়। এই প্রকল্প ব্যায়ের অর্থের মধ্যে সরকার ১৩ কোটি ১৩ লাখ ৪৭ হাজার টাকা ও মিল্কভিটা অনুদান দেয় ৫ কোটি ১১ লাখ টাকা। ভারত থেকে বৈধভাবে রায়পুর মহিষের এ কৃত্রিম প্রজনন কেন্দ্রের জন্য ২০১৭ সালের ৩১ ডিসেম্বর ও ২০১৮ সালের ১০ মে মুরাহ জাতের ৮৭ টি মহিষ ও ৫০ টি মহিষের বাচুর আমদানি করা হয়। মুরাহ জাতের মধ্যেও রয়েছে উন্নত জাতের ৫টি মহিষ।

উপকূলীয় চরাঞ্চল মহিষ চাষের জন্য উপযোগী। রায়পুর, সদর, রামগতি ও কমলনগর উপজেলার চরগুলোতে বিপুল পরিমান সরকারি খাস জমি রয়েছে। এসব খাস ও ব্যক্তিমালিকানা জমিতে অর্ধশতাধিক মহিষের খামার গড়ে উঠেছে। এতে প্রায় ৩০ হাজার মহিষ পালনের সঙ্গে নিয়োজিত রয়েছেন বিপুল সংখ্যক রাখাল। মহিষের দুধে তৈরী করা দধি সুস্বাদু হওয়ায় সারা দেশে এর ব্যাপক কদর রয়েছে। তাছাড়া স্বল্প খরচে মহিষ পালন করে স্বাবলম্বী হচ্ছেন উপকূলের হাজারো নারী-পুরুষ।

তবে স্থানীয়ররা জানায়, এ প্রজনন কেন্দ্রের উন্নত জাতের মহিষ সমবায়ের মাধ্যামে খামারীদের মাঝে প্রসার ঘটলে, দুধ ও মাংস উৎপাদন বাড়বে। এতে করে বেকার সমস্যা দুর হওয়ার পাশাপাশি ব্যাপক লাভবান হবেন খামারীরা।

রায়পুরে মহিষ কৃত্রিম প্রজনন কেন্দ্রের তত্ত্বাবধায়ক ডাঃ মোঃ ফরহাদুল আলম জানান, উন্নতজাতের এসব মহিষ সমবায়ীদেরকে পালনের জন্য দেওয়া হবে। এতে করে দুধ ও মাংস উৎপাদনে নতুন বিপ্লব ঘটবে। তাছাড়া সমবায়ীরা চরাঞ্চলে গাভীর পাশাপাশি মহিষ পালন করেও অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বি হবেন জানান তিনি।

উন্নত জাতের এই সব মহিষ চরাঞ্চলে খামারীদের মাঝে প্রসার ঘটলে, দুধ ও মাংস উৎপাদন যেমন বৃদ্ধি পাবে, তেমনি লাভবান হবেন খামারীরা, এমনটাই মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।


এ জাতীয় আরো খবর..

করোনাভাইরাস