কমলনগরে গৃহবধূর চুল কেটে মারধর, শ্লীতাহানির অভিযোগ

22

কমলনগর সংবাদদাতা :

লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে গৃহবধূর চুল কেটে মারধর সহ শ্লীতাহানি করা হয়েছে। এসময় বোনকে বাঁচাতে ভাই মনির এগিয়ে আসলে তাকেও মারধর করে রক্তাক্ত করে একই বাড়ীর বোনের দেবর ও ননদিরা। গত ২৮ মে উপজেলার চর কালকিনি এলাকায় এঘটনা ঘটে। আহতবস্থায় ইয়াসমিনকে উদ্ধার করে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করায় স্বজনরা। এঘটনায় ভুক্তভোগী ইয়াসমিন বাদী হয়ে গত ২ মে কমলনগর থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

অভিযোগ সূত্রে জানাগেছে, চরকালকিনি ইউনিয়নের মতিরহাট বেড়ী সংলগ্ন শাহ আলম হাজীর পুরাতন মোল্লা বাড়ীতে বসবাস করেন ইয়াসমিন ও তার পরিবারের সদস্যরা। একই বাড়ির সিডু মোল্লার ছেলে ওমান প্রবাসী নুরুল ইসলামের সাথে গত ৩মাস পূর্বে মোবাইল ফোনে বিয়ে হয় ইয়াসমিনের । নুরুল ইসলাম গত দেড় বছর থেকে মধ্য প্রাচ্যের দেশ ওমান চাকুরী করছেন ।

বিয়ের কথা শুনার পর এক লক্ষ টাকা দাবী করে শশুর পক্ষের লোকজন।  না দেয়ায় একাধিকবার মারধর ও শাররীক নির্যাতন করা হয়। সর্বশেষ গত ২৮ মে দুপুরে পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে দেবর নুরউদ্দিন, কুদ্দুছ, মোহাম্মদ আলী, জাফর আহম্মদ, ননদ আমেনা ও লাইলী গৃহবধূ ইয়াসমিনের বাবার বসত ঘরে  ঢুকে জোরপূর্বক তাকে টেনে হেঁচড়ে বাহিরে বের করে আনে এবং বেধম মারধর করে। এসময় তার শরীরের কাপড় ছিঁড়ে ফেলে উলঙ্গ করে দেয় তারা। এক পর্যায়ে ওই গৃহবধূর চুল কেটে দেয় তারা।

নির্যাতিত ইয়াসমিনের বসতঘর, এখান থেকে টেনেহেঁচড়ে বের করে মারধর করা হয়।

এসময় ইয়াসমিনের ব্যবহৃত একটি হাওয়াই মোবাইল গলায় থাকা ৮ আনা ওজনের চেইন চিনিয়ে নেয় দেবর ও ননদ। এসব বিষয়ে মামলা করলে কিংবা সমাজে কাউকে জানালে আরো বেশি মারধর করা হবে। এমন হুমকি দেয় বলে অভিযোগ ভুক্তভোগীদের। তবে এসব বিষয়ে স্থানীয় গন্যমান্যদের নিকট কোন বিচার পায়নি বলে জানান ইয়াসমিন।

অভিযোগের বিষয়ে অস্বীকার করে দেবর মোহাম্মদ আলীসহ  অভিযুক্তরা  বলেন, ছোট একটা শিশুকে নিয়ে তর্কবিতর্ক হয়েছে। বরং ইয়াসমিন তাদেরকে ঝাড়ু দিয়ে মেরেছে ,তারা তা প্রতিহত করেছে।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here