• রবিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০২:৩৫ পূর্বাহ্ন
  • Bengali Bengali English English

চাঁদপুর সরকারি কলেজে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস পালিত

SodshBarta24 / ৩৭ বার পঠিত
আপডেট : মঙ্গলবার, ১৫ ডিসেম্বর, ২০২০
চাঁদপুর সরকারি কলেজে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস পালিত
চাঁদপুর সরকারি কলেজে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস পালিত

ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপীঠ চাঁদপুর সরকারি কলেজে ১৪ ডিসেম্বর সোমবার দুপুর ১২টায় কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর অসিত বরণ দাশের সভাপ্রধানে এক ভার্চুয়াল আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। শিক্ষক পরিষদের যুগ্ম-সম্পাদক মোঃ সাইদুজ্জামানের সঞ্চালনায় এতে বক্তব্য রাখেন ইতিহাস বিভাগের প্রভাষক মেহেদী আরিফ, রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোঃ আব্দুল কুদ্দুছ সামী, ব্যবস্থাপনা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও শিক্ষক পরিষদ সম্পাদক কিউ এম হাছান শাহরিয়ার, অর্থনীতি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মোঃ জালাল উদ্দিন জালাল। সকল বক্তাই দিবসটির তাৎপর্য তুলে ধরেন এবং গভীর শ্রদ্ধার সাথে স্বরণ করেন জাতির এই সূর্য সন্তানদের। ১৯৭১ সালে বাঙালি জাতি যখন বিজয়ের উষালগ্নে, ঠিক তখনই অত্যন্ত পরিকল্পিতভাবে জাতিকে মেধাশূন্য করার উদ্দেশ্যে এই জঘন্য হত্যাকান্ড সংঘটিত করা হয় বলে অভিমত প্রকাশ করেন।

প্রফেসর অসিত বরণ দাশ তাঁর বক্তব্যের শুরুতে গভীর শ্রদ্ধার সাথে স¦রণ করেন, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি, স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা শেখ মুজিবুর রহমানকে। গভীর শ্রদ্ধার সাথে স্বরণ করেন, জাতির এই সূর্য সন্তানদের এবং মহান মুক্তিযুদ্ধে আত্মদানকারী সকল বীরসেনাদের। তিনি বলেন, ‘‘বাঙালি জাতি যখন স্বাধীনতা যুদ্ধে জয়ী হয়ে বিজয় উদ্যাপনের প্রস্তুতি নিচ্ছে, ঠিক তখন পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর সাথে হাত মিলিয়েছে এদেশের গুটিকয়েক রাজাকার, আলবদর, আলশামস। পরাজয় নিশ্চিত হয়ে যাবার পর অত্যন্ত ঠান্ডা মাথায় সংঘটিত করা হয়েছে এই নারকীয় হত্যাযজ্ঞ। আমি এই নারকীয় হত্যাকান্ডকে গণহত্যা হিসেবে আন্তর্জাতিক স্বীকৃতির দাবি করছি।’’ তিনি আরও বলেন, স্বাধীনতার পরাজিত শক্তি বারবার বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বের উপর আঘাত হেনেছে। যারাই বাঙালির সূর্য সন্তানদের হত্যা করেছে, তারাই পাঁচাত্তরের ১৫ই আগস্ট নারকীয় হত্যাকান্ড ঘটিয়েছে। এরাই বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নির্মাণে বাধা দিচ্ছে, এরাই কুষ্টিয়ায় বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যে আঘাত করেছে।

তিনি আরও বলেন, যে উদ্দেশ্যে স্বাধীনতা বিরোধী শক্তি জাতির মেধাবী সন্তানদের হত্যা করেছে, সে উদ্দেশ্য কখনও সফল হয়নি এবং হবেও না। বাংলাদেশ অনেক এগিয়েছে, আরও অনেক এগিয়ে যাবে এবং বিশ্ব দরবারে বাংলাদেশ আজ মাথা উচু করে দাঁড়িয়েছে।

বিভিন্ন বিভাগের বিভাগীয় প্রধানগণ এবং শিক্ষকবৃন্দের উপস্থিতি ভার্চুয়াল আলোচনা সভাকে প্রাণবন্ত করেছে।


এ জাতীয় আরো খবর..

করোনাভাইরাস